34 C
Kolkata
Friday, June 12, 2020

Home News জুম অ্যাপের ব্যবহার বহু স্কুলে, হ্যাকারদের সুবিধে

জুম অ্যাপের ব্যবহার বহু স্কুলে, হ্যাকারদের সুবিধে


সাউথ পয়েন্ট স্কুলের দশম শ্রেণির অনলাইন ক্লাস চলছিল জুম অ্যাপে। হঠাৎ দেখা গেল, চ্যাট বক্সে ফুটে উঠছে নানা রকম অশ্লীল শব্দ, কথোপকথন আর ছবি। শিক্ষিকা বার বার বলা সত্ত্বেও থামার নাম নেই। ক্লাসে ইতি টানতে বাধ্য হলেন শিক্ষিকা। দক্ষিণ কলকাতার আর একটি ইংরেজি মাধ্যম স্কুলের সপ্তম শ্রেণির অনলাইন ক্লাসেও একই অভিজ্ঞতা। সেখানে একই ভঙ্গিতে ঢুকে পড়ে গালিগালাজ করছিল বহিরাগতরা। জুম অ্যাপে ক্লাস চলছিল ওই স্কুলেও।


স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক একাধিক বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানিয়েছে, জুম নিরাপদ প্ল্যাটফর্ম নয়। সাইবার অপরাধ বিশেষজ্ঞদের অনেকেই জানাচ্ছেন, জুম অ্যাপ ব্যবহার করা হলে হ্যাকারদের সুবিধে। মোবাইল ফোন-ল্যাপটপ-ডেস্কটপ, যাতে ওই অ্যাপ ব্যবহার করা হচ্ছে, হ্যাকাররা সেখানে সহজে ঢুকে পড়ে জরুরি ও গোপন তথ্য হাতিয়ে নিয়ে পারবে, এমন আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। বিশেষ করে যেখানে লকডাউনের সময়ে বহু পড়ুয়া অনলাইন ক্লাস করছে অভিভাবকদের মোবাইল ফোন বা ল্যাপটপে এবং সেখানে রয়েছে তাঁদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট-সহ বিভিন্ন জরুরি তথ্য।

অনলাইন নয়, সাধারণ ক্লাসে অনেক সময়ে পিছনের বেঞ্চে বসা পড়ুয়াদের একাংশ গোলমাল করে। ওই দু’টি স্কুল কর্তৃপক্ষের বক্তব্য, এটা হল অনলাইন ক্লাসে দুষ্টুমি। তবে শুধু কি তাই? স্রেফ দুষ্টুমির ক্ষেত্রে এত অশ্লীল শব্দ ব্যবহার করবে পড়ুয়ারা? এই ব্যাপারে অভিভাবকদের একাংশ সন্দিহান। তা ছাড়া, তাঁদের ভয়, স্কুলপড়ুয়া বা তাঁদের পরিচিতরা জুম অ্যাপে এই কাণ্ড ঘটাতে পারলে হ্যাকারা তো আরও ভয়ানক কিছু করবে!


সাউথ পয়েন্টের মুখপাত্র কৃষ্ণ দামানি বলেন, ‘আর ৮-১০ দিনের মধ্যে আমাদের নিজেদের অনলাইন ক্লাসের সফ্‌টওয়্যার তৈরি হয়ে যাবে। কোনও বাইরের অ্যাপের উপর ভরসা করতে হবে না।’ তাঁর বক্তব্য, ‘যে সব অনলাইন ক্লাস চলাকালীন পড়ুয়া ওই কাজ করেছিল, আমাদের টেকনিক্যাল টিম তাদের খুঁজে বের করেছে। আমরা ওদের সতর্ক করেছি।’

ডিপিএস রুবি পার্ক প্রতিটি অনলাইন ক্লাসে নজরদারির জন্য এক জন করে পর্যবেক্ষক ও মনিটর নিয়োগ করেছে। কিন্তু জুম অ্যাপ নিরাপদ নয় জেনেও ব্যবহার করা হচ্ছে কেন? ওই স্কুলের সহ-অধ্যক্ষা ইন্দ্রাণী চট্টোপাধ্যায়ের মতে, ‘যে কোনও অ্যাপ মারফতই ডেটা চুরি হতে পারে। আমরা সাবধানতা অবলম্বন করছি।’

মডার্ন হাইস্কুল ফর গার্লস-এর অধিকর্তা দেবী কর বলেন, ‘আমরা কেবল জুম অ্যাপ নয়, অন্য প্ল্যাটফর্মও ব্যবহার করছি। তবে কোনও কিছুই পুরোপুরি নিরাপদ নয়। সব ক্ষেত্রেই সাবধানতা অবলম্বন করতে হচ্ছে। বার বার পাসওয়ার্ড বদলানো, কোনও গোপন কিছু শেয়ার না-করা— এই সব সতর্কতা নেওয়া হচ্ছে।’

তা সত্ত্বেও কলকাতার বহু স্কুল জুম অ্যাপে ক্লাস নেওয়া বন্ধ করেনি। অভিভাবকদের অনেকেই লিখিত ভাবে এই বিপদ সম্পর্কে জানিয়েছেন। তবু ওই সব স্কুল যেন গোঁ ধরে বসে আছে, তারা জুম অ্যাপেই ক্লাস নেবে।

তবে ওই দু’টি স্কুল নিজস্ব অনুসন্ধান চালিয়ে দেখেছে, ওটা হ্যাকারদের কাজ নয়, দুষ্টুমি করে ক্লাস ভণ্ডুল করার জন্য পড়ুয়াদের মধ্যে কয়েক জন অনলাইন ক্লাসের লিঙ্ক আর পাসওয়ার্ড শেয়ার করে দিচ্ছে বিভিন্ন গ্রুপে বা পরিচিতদের মধ্যে। যাতে অন্যরা সেই লিঙ্কে ঢুকে গোলমাল বাধাতে পারে। কয়েক জন পড়ুয়া আবার চালাকি করে নিজের নাম বদলে নিজেই নিজের ক্লাস ভণ্ডুল করছে।

Latest News

লক্ষ ছাড়িয়েও থামছে না সংক্রমণ, শেষ ২৪ ঘন্টায় ১৩৪ মৃত্যু

দেশে লাফিয়ে বাড়ছে মৃত্যুর হার। সোমবারই আক্রান্ত ছাড়িয়ে গেছিল ১ লক্ষ। এবার আরও বাড়ল সংক্রমণ। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া রিপোর্ট জানাচ্ছে, শেষ ২৪ ঘন্টায়...

কাল বিকেলে ১৮০ কিমি বেগে আছড়ে পড়তে পারে আমপান

উপকূলবর্তী এলাকায় সমুদ্র এবং নদীর জল নীচু এলাকায় ঢুকে যাতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। আমপানের মোকাবিলায় তৈরি রয়েছে রাজ্য প্রশাসন। দিঘা...

আজকের রাশিফল

আজ ১৯ মে মঙ্গলবার, জ্যোতিষ শাস্ত্রের মতে প্রত্যেক রাশি অনুযায়ী প্রত্যেক ব্যক্তির এক একটি দিন এক এক রকম হয়। আজকের দিনটি কোন...

আগামী ৬ ঘণ্টায় শক্তি হারাবে সুপার সাইক্লোন আমফান, জানাল হাওয়া অফিস

সোমবার বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, সতর্ক করা হয়েছে ওডিশা এবং পশ্চিমবঙ্গকে। মে মাসের ২০ তারিখ অর্থাৎ বুধবার বাংলায় আছড়ে পরতে পারে...

ludoleague.net Play Real Money Ludo Game